যেকোনো ইউটিউব চ্যানেল ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলে মুভ করার নিয়ম এবং সুবিধা / অসুবিধা

youtube brand account create and move
  • Post author:

যারা প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করতে চান তাদের জন্য গুগল ২০২১ সালের ৪ই আগস্ট ব্র্যান্ড একাউন্ট সুবিধা নিয়ে আসে । যার মাধ্যমে বেসিক ইউটিউব একাউন্ট থেকে প্রফেশনাল বা ব্র্যান্ড একাউন্টে move করা যাবে ।

ইউটিউব ব্র্যান্ড একাউন্ট কি ?

কোন পণ্য বা সেবাকে ইউনিক ভাবে চেনার একমাত্র উপায় হল ব্রান্ড । ইউটিউব ব্রান্ড অ্যাকাউন্ট হলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে পণ্য, সেবা বা ব্র্যান্ড হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার উপায়। 

ইউটিউব চ্যানেলকে ব্যক্তিগত উদ্দেশ্য ব্যবহারের পাশাপাশি বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে অথবা ব্রান্ড তৈরি করার কাজে ব্যবহারের সুযোগ দেয়ার জন্য এই সুবিধাটি দেওয়া হয়েছে ।

যেমন ফেসবুকে স্পেসিফিক কোন ব্রান্ড তৈরি করার জন্য Facebook business account ব্যবহার করা হয় ।

বেসিক একাউন্ট এবং ব্রান্ড একাউন্ট এর মধ্য পার্থক্য 

সাধারণত ব্যক্তিগত ব্যবহারের উদ্দেশ্যে বেসিক ইউটিউব চ্যানেলটি ব্যবহার করা হয় কিন্তু ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলের বাণিজ্যিক উদ্দেশ্য বা লং টাইম পরিকল্পনা থাকে ।

ব্যক্তিগত গুগল একাউন্টে অটোমেটিক্যালি একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করা থাকে কিন্তু ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্টটি আলাদাভাবে তৈরি করতে হবে ।

বেসিক ইউটিউব চ্যানেলটি সাধারণত কোন বিজনেস ব্রান্ড বা সেবা হিসেবে তৈরি করা হয় না কিন্তু ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলকে ব্রান্ড বা সেবা দেওয়ার উদ্দেশ্য তৈরি করা হয় ।

ব্র্যান্ড একাউন্ট তৈরি করার মাধ্যমে গুগল একটি ইউটিউব চ্যানেলকে ব্র্যান্ড হিসেবে স্বীকৃতি দেয় কিন্তু বেসিক চ্যানেলকে কোন ব্র্যান্ড একাউন্ট হিসেবে স্বীকৃতি দেয় না ।

ভিডিও কনটেন্ট গুলো মনিটরিং করার জন্য কিছু অতিরিক্ত ফিচার পাওয়া যায় কিন্তু বেসিক ইউটিউব চ্যানেলে ফিচার গুলো কিছুটা লিমিটেড থাকে ।

বেসিক ইউটিউব চ্যানেল গুলোতে একটি মাত্র জিমেইল ব্যবহার করা যায় কিন্তু ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলগুলোতে অনেকগুলো জিমেইল ব্যবহার করার সুবিধা থাকাই যেমন নিরাপত্তা বেশি তেমনি সুবিধা ও বেশি ।

ইউটিউব ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্টের সুবিধা ও অসুবিধা ।

  • ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলগুলো একাধিক জিমেইল একাউন্ট দিয়ে মনিটরিং করা যায় এজন্য এই চ্যানেলগুলো হ্যাকিং করা একটু কষ্টসাধ্য ।
  • একটি ব্র্যান্ড একাউন্ট এর মাধ্যমে কয়েকটি ইউটিউব চ্যানেল একসাথে মনিটরিং করা সম্ভব।
  • ইউটিউব চ্যানেলের প্রাইমারি জিমেইল কে হাইড করে রাখার জন্যও ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্ট থেকে সুবিধা পাওয়া যাবে ।
  • আপনার ইউটিউব চ্যানেলকে বাণিজ্যিকভাবে পণ্য বা সেবা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া ।
  • ব্যক্তিগত চ্যানেল থেকে ব্র্যান্ড চ্যানেলগুলো বেশি নিরাপদ থাকে কারণ তৃতীয় কোন পক্ষকে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পারমিশন দেওয়া যায় ।
  • আপনার ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্ট টি ম্যানেজ করার জন্য ভিন্ন ভিন্ন Role এ পারমিশন দিতে পারবেন ।
  • ইউটিউব ব্র্যান্ড চ্যানেলের মাধ্যমে কিছু অতিরিক্ত পরিসংখ্যান পাওয়া যাবে যার মাধ্যমে আপনার কনটেন্ট গুলো কেমন পারফর্ম করছেন এবং ইমপ্রুভ করার স্ট্রাটেজিও পেয়ে যাবেন ।

ব্র্যান্ড চ্যানেলে মুভ করার পর কয়েকটি অসুবিধা হবে 

  • যেমন আপনার আগের চ্যানেলের ডেমোগ্রাফিক সেটিংগুলো সেগুলো মুভ হবে না কিন্তু সেই সেটিংগুলো আপনি পুনরায় করে নিতে পারবেন ।
  • আপনার এই ইউটিউব চ্যানেল ব্যবহার করে অন্যান্য ইউটিউব চ্যানেলে যে কমেন্ট বা লাইক গুলো করবেন সেগুলো রিমুভ হয়ে যাবে ।
  • কিছু কিছু ক্ষেত্রে আপনার ইউটিউব চ্যানেলের লোগো, ব্যানার , বা অন্যান্য তথ্য মুভ হতে কিছুটা সময় লাগতে পারে ।

কিভাবে সাধারন ইউটিউব একাউন্ট থেকে ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্টে মুভ করতে হয় ?

  • আপনার ইউটিউব চ্যানেলের Youube studio এই মূড টি ওপেন করে নিন 
  • চ্যানেলের setting অপশন থেকে advanced settings এ ক্লিক করতে হবে 
  • একটু নিচের দিকে Manage YouTube account নামের এই সেটিং এ ক্লিক করব 
  • এরপর প্রথম দিকে view advanced settings ক্লিক করে, একটু নিচের দিকে আসলে দেখতে পারবো move channel to a brand account এখানে ক্লিক করব ।
  • Create a new channel অপশনে ঠিক একই নাম দিয়ে নতুন আরেকটি চ্যানেল তৈরি করব ।
  • নতুন চ্যানেল তৈরি করা শেষ হলে ঠিক আগের মতই setting অপশন থেকে manage youtube account এবং advanced settings অপশনে গিয়ে নতুন তৈরিকৃত চ্যানেলটি তে replace করতে হবে ।
  • চ্যানেলটির replace অপশনে ক্লিক করে এই মুহূর্তে যে চ্যানেলটি তৈরি করলেন সেটি Delete করতে হবে ।
  • এরপরে move channel এ ক্লিক করার পরে আপনার youtube চ্যানেলটি সাকসেসফুলি ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলে রূপান্তরিত হবে ।

কিভাবে ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলে ম্যানেজার পারমিশন এড করতে হয় ?

  • চ্যানেলে Settings এ ক্লিক করুন 
  • channel managers অপশন থেকে add or remove managers এ ক্লিক করুন 
  • এবার users অপশন থেকে manage permissions অপশন এ ক্লিক করুন
  • যে কোন জিমেইল আইডি দিয়ে role সিলেক্ট করে দিন এবং সর্বশেষে জিমেইল আইডিটি ভেরিফাই করুন

এখন প্রশ্ন হল আপনি কিভাবে নিশ্চিত হবেন যে, এই অ্যাকাউন্টটি ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্টে রূপান্তরিত হয়ে গেছে ?

ব্রান্ড একাউন্ট চেনার কয়েকটি উপায় হল 

-আপনার চ্যানেলের অ্যাডভান্স সেটিং এ move channel to a brand account এরকম নামে কোনো অপশন থাকবে না ।

-নতুন manager বা owner এড করতে পারবেন

-ইউটিউব চ্যানেলের প্রাইমারি জিমেইলটি হাইড থাকবে 

এগুলোই মূলত ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্ট চিনে নেওয়ার প্রধান ফিচার ।

নিচের এই পিকচার গুলো লক্ষ করুন তাহলে আরো ভালো বুঝতে পারবেনঃ

১-

Step one screenshot

২-

Click advance setting screenshot 2

৩-

Move channel to a brand account step 4 screenshot

৪-

৫-

YouTube channel main settings in screenshot 5

কিভাবে ব্র্যান্ড একাউন্টটি ম্যানেজার এড করবেন ?

১-

Add or remove managers sections screenshot step 1

২-

Step 2 screenshot manage permissions

৩-

Step 4 screenshot

৫-

Step 5 screenshot

ইউটিউব ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্ট নিয়ে কিছু সাধারণ প্রশ্ন

আমার আগের ইউটিউব চ্যানেল থেকে ব্রান্ড ইউটিউব চ্যানেলে মুভ করলে আগের চ্যানেলে কোন সমস্যা হবে কিনা ?

উত্তরঃ মেজর কোনো সমস্যা হবে না, তবে ডেমোগ্রাফিক সেটিং গুলো পরিবর্তন হবে, আবার আপনার আগের চ্যানেল ব্যবহার করে অন্য কোন চ্যানেলে যদি কমেন্ট করে থাকেন তাহলে সেগুলোও রিমুভ হয়ে যাবে ।

প্রশ্নঃ  ব্যান্ড ইউটিউব চ্যানেল ব্যবহার করলে ভিডিও রেংকিং বা ভিউজ এ কোনো প্রভাব পড়বে কিনা ?

উত্তরঃ কোনই প্রভাব পড়বে না আপনি এটি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করুন ।

প্রশ্নঃ  আমার আগের ইউটিউব চ্যানেলে যদি অনেক সাবস্ক্রাইবার থাকে এবং অনেক ভিউজ থাকে তাহলেও কি এটি ব্রান্ড একাউন্ট তৈরি করার প্রয়োজন আছে ?

উত্তরঃ বেসিক একাউন্ট থাকলে কোন সমস্যা নাই তবে ব্র্যান্ড অ্যাকাউন্ট তৈরি করলে আপনি কিছু অতিরিক্ত সুবিধা পাবেন ।

প্রশ্নঃ  কাদের ব্র্যান্ড ইউটিউব চ্যানেল একাউন্ট তৈরি করার প্রয়োজন রয়েছে ?

উত্তরঃ যারা ইউটিউব চ্যানেলকে প্রফেশনালি ব্যবহার করে অথবা বাণিজ্যিক বা সেবার উদ্দেশ্যে ব্যবহার করতে  চাই তাদের এটি প্রয়োজন রয়েছে ।

প্রশ্নঃ  আমার ইউটিউব চ্যানেলে ভেরিফাই করা blue sign  আছে এখন এই চ্যানেল থেকে নতুন ব্রান্ড চ্যানেলে মুভ করলে কোন সমস্যা হবে কিনা ?

উত্তরঃ না কোন সমস্যা হবে না, আপনি আগের মতোই চ্যানেলটি ব্যবহার করতে পারবেন তবে সকল ইনফরমেশন সঠিকভাবে দেখাতে কয়েক ঘন্টা সময় লাগতে পারে ।