ওয়াডপ্রেস থিম কাস্টমাইজেশন প্রসেস 

You are currently viewing ওয়াডপ্রেস থিম কাস্টমাইজেশন প্রসেস 

একটি ওয়েবসাইটে  থিম ইন্সটলের পরে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে থিম কাস্টমাইজেশন করা | কাস্টমাইজেশন এর মাধ্যমে আপনি আপনার মত করে ওয়েবসাইট ডিজাইন করে নিতে পারবেন  কোন রকমের কোডিং এর নলের ছাড়া |  ওয়েবসাইটের  ড্যাশবোর্ড থেকে  আপনি যদি কাস্টমাইজেশন করেন তাহলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটটি আপনার মত করে সাজিয়ে নিতে পারবেন |  এখানে আপনি কোন থিম ইউজ করছেন সে থিমে  যদি কোন  লিমিটেশন থাকে তাহলে আপনি সেই কাজটুকু বাদে বাকি সব কাস্টমাইজেশন করতে পারবেন | 

এখন আমরা দেখব, কিভাবে একটি  থিম  কাস্টমাইজেশন করতে হয় |   আমি যে থিমটি ইন্সটল করেছি আমি এটিকে কাস্টমাইজ করার পদ্ধতি দেখাবো | আপনি যে থিম ইন্সটল করবেন সে থিমেও ম্যাক্সিমাম এই অপশন গুলো থাকবে | 

  • প্রথম আপনি অ্যাপিয়ারেন্স যাবেন
  • কাস্টমাইজ সেকশনে ক্লিক করবেন, এখানে আপনি বিভিন্ন ধরনের অপশন পাবেন যার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটটিকে সুন্দরভাবে সাজিয়ে নিতে পারবেন আপনার মত করে |
  • তারপর হোমপেজ সেটিং এ ক্লিক  করবেন,  আপনি যদি চান আপনি  কোন একটি  নির্দিষ্ট পেজ আপনার ওয়েবসাইটের হোমে দেখাতে চান তাহলে এখানে স্টাটিক পেজ সিলেক্ট করবেন অথবা আপনি  যদি পোস্ট পেজ হোমপেজে দেখতে চান তাহলে সেই পেজটা এখান থেকে সিলেক্ট করে দিবেন |
  • তারপরের অপশনটি হচ্ছে সেটআপ এন্ড লে- আউট,  আমরা যখন ডোমেইন এর আন্ডারে  ওয়াডপ্রেস সেটআপ করেছিলাম তখন আমরা দেখতে পেয়েছিলাম সাইট নেম এবং সাইট ডেসক্রিপশন |  পূর্বে যদি আপনি না করেন তাহলে এখান থেকে আপনি সাইট নেম এবং সাইট ডেসক্রিপশন অ্যাড করে দিতে পারেন | তাছাড়া এখান থেকে আপনি সাইটের আইকন সিলেক্ট করে নিতে পারেন এবং  আপনার ওয়েবসাইটের  লে-আউট কেমন হবে এখান থেকে আপনি সেটি সিলেক্ট করে পাবলিশ বাটনে ক্লিক করলে আপনার ওয়েবসাইটে সেট হয়ে যাবে | 
  • তারপরে সেকশনটি হচ্ছে টপবার ব্যানার, এখান থেকে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের ব্যানার ইমেজ এবং টাইটেল অ্যাড করতে পারবেন 
  • হেডার ইমেজ, ওয়েবসাইটের হেডারে যে ইমেজটি ব্যবহার করতে চান আপনি এখান থেকে সেটি সিলেক্ট করে পাবলিশ বাটনে ক্লিক করবেন
  • এরপরের হেডার সেকশন থেকে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের  হেডার অপশনটি সাজিয়ে নিতে পারবেন যেমন, আপনার ওয়েবসাইটের লোগোটি কোথায় থাকবে এবং মেনু গুলো কোথা থেকে শো করবে  সেই লোকেশন সিলেক্ট করে দিতে পারবেন
  • এরপরের অপশনটি আছে লোগো, লোগো হচ্ছে একটি ওয়েবসাইটকে চেনার জন্য আইকনিক হিসেবে ব্যবহার করা হয় | আপনি এখান থেকে লোগো সেটআপ করে নিতে পারবেন এর বর্ডার সাইজ বিভিন্ন ধরনের সেটিং করে এখান থেকে আপনি পাবলিশ  করতে পারবেন
  •  কালার এন্ড ব্যাকগ্রাউন্ড,  এই অপশনটি মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের হেডার এন্ড ফুটার সহ বাকি কনটেন্ট এর ব্যাকগ্রাউন্ড কালার এবং ফন্ট কালার সেট করে দিতে পারবে 
  •  সাইট-ব্যাকগ্রাউন্ড ইমেজ এর মাধ্যমে আপনি পুরো  ওয়েবপেজের ব্যাকগ্রাউন্ড ইমেজ সেট করতে পারবেন
  • এরপরের অপশনটি হচ্ছে টাইপোগ্রাফি,  এর মাধ্যমে আপনি ওয়েবসাইটের font-family ,ফন্ট সাইজ, হেডিং এবং সাব হেডিং এর  ফন্ট ঠিক করে নিতে পারবেন
  • এরপরের অপশনটি হচ্ছে ফন্ট পেজ মডিউল,  ওয়েবসাইট কোন স্টাইলে যাচ্ছেন সেটি এডিট করে নিতে পারবেন অর্থাৎ আপনি কি ওয়েব সাইটে যে কোন উইকেট চাচ্ছেন কিনা যদি  চান  তাহলে এখান থেকে ডান-বাম সিলেক্ট করে নিতে পারবেন
  • পরের অপশনটি হচ্ছে আর্কাইভ,  এর মাধ্যমে আপনি আপনার ব্লগের সাথে কি কি চাচ্ছেন যেমন ট্যাগ,  অথর নেম, কতটা ভিউ হইছে,  কমেন্ট এসব কিছু সেটাআপ করে নিতে পারবেন | এখান থেকে আপনি সিলেক্ট করে দিতে পারবেন আপনার আর্টিকেলটি ফুল শো করবে নাকি কত ওয়ার্ডের শো করবে  এবং এর লে-আউট টা কেমন আসবে |
  • সিঙ্গেল পোস্ট আপনি যখন কোন একটা আর্টিকেল সিঙ্গেল ভাবে ওপেন করবেন তখন এটি দেখতে কেমন হবে এখান থেকে সেটাপ করে দিতে পারবেন |
  • একটি ওয়েবসাইটের নিচের অংশ হচ্ছে ফুটার এই সেকশন থেকে আপনি  ফুটওয়ারডিজাইন করে নিতে পারবেন এটা আপনি কিভাবে চাচ্ছেন |
  • এরপরে সেকশন হচ্ছে মেনু পূর্বে ক্যাটাগরি সেটআপ করেছিলেন এবং পেজ সেটআপ  করেছিলেন আপনি চাইলে এখান থেকে পেজ এবং ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে উপরের হেডিং এ রাখতে পারেন এই  মেনু সেকশন  এর মাধ্যমে |
  • উইডগেট সেকশন থেকে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের ফ্রন্ট পেজ,  পোস্ট পেজ, সিঙ্গেল পোস্ট, এবং  ফুটার  এর জন্য উইডগেট সিলেক্ট করে নিতে পারবেন এই অপশন থেকে
  • সর্বশেষ অপশনটি হচ্ছে,অ্যাডিশনাল সিএসএস বা কাস্টম সিএসএস  এর মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের background-color, ফন্ট কলোর, ফন্ট সাইজ, বর্ডার এসব অ্যাড করতে পারবেন যদি আপনি সিএসএস পারেন |  মূলত কাস্টম সিএসএস কাজ করে যদি ওয়েবসাইটের কোন ফন্ট বা কালার আপনার পছন্দ না হয় তাহলে আপনি কাস্টম সিএসএস  এসে আপনার পছন্দমত কালার বা ফন্ট ডিক্লেয়ার করে দিতে পারবেন |

এখানে আপনাকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে প্রত্যেকটি সেকশনে পরিবর্তন করার পর আপনাকে অবশ্যই পাবলিশ বাটনে ক্লিক করতে হবে যদি না পেয়ে পাবলিশ বাটন এ ক্লিক করেন তাহলে আপনি যে পরিবর্তনটি করেছেন এটি আপনার ওয়েবসাইটে শো করবে না সুতরাং এটি খুব ইম্পর্টেন্ট  যে কোন পরিবর্তনের পর পাবলিশ বাটনে ক্লিক করা |

Leave a Reply