ইমেইল মার্কেটিং কি ? কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করবেন? | Email Marketing Bangla

email marketing bangla tutorial

Chapter-01 ইমেইল মার্কেটিং পরিচিতি

ইমেইল কি?

EMAIL অর্থ Electronic Mail, যা দুই বা ততোধিক ব্যবহারকারির মধ্য মেসেজ আদান-প্রদান করতে ব্যবহার করা হয়।

Email বিভিন্ন নামে পরিচিত  electronic mail, e-mail, mail ও Gmail

বর্তমানে ইমেইল সিস্টেমের বেজ হলো Store & Forward মডেল অর্থাৎ ইমেইল রিসিভ, সেন্ড এবং স্টোর করে রাখাই হলো এই সিস্টেমের প্রধান কাজ।

জনপ্রিয় ইমেইল একাউন্ট সার্ভিস লিস্ট

  • Gmailঃ জিমেইল হলো গুগল এর নিজসব একটি প্রডাক্ট সারা বিশ্বের প্রায় ১.২  বিলিয়ন ব্যবহারকারী রয়েছে।জিমেইল সাধারণত ফ্রি ব্যবহার  করা যায় কিন্তু G-Suit এ তিন ধরনের প্লান রয়েছে আপনি চাইলে যেকোনো প্লান কিনেও ব্যবহার করতে পারেন।
  • Outlookঃ আউটলুক হল মাইক্রোসফট একটি প্রোডাক্ট, সারা বিশ্বে প্রায় ৪০০ মিলিয়ন আউট তুলুক ব্যবহার যে গুগলের সবথেকে বড় কম্পিটিটরস।
  • Hubspotঃ হাবস্পট সাধারণত e-mail মারকেটিং টুলস হিসেবেই বেশি পরিচিত, তবে এটি ইমেইল একাউন্ট হিসেবেও ব্যবহার করা হয়।
  • ProtonMailঃ সাধারণ ব্যবহারকারীর কাছে প্রোটন মেইল অনেক জনপ্রিয় কারণ এর প্রাইভেসি এবং সিকিউরিটি ব্যবস্থা। END to END encryption সিস্টেমের মাধ্যমে ডাটা আদান প্রদান করা হয়।
  • AOLঃ এটি হলো Verizon কোম্পানির-  web-based ইমেইল সিস্টেম যা সম্পুর্ন্য ফ্রী ইমেইল সার্ভিস প্রদান করে।
  • Yahoo Mailঃ ইয়াহু মেইল হল সবথেকে ট্রাস্টেড এবং জিমেইল একাউন্ট সেবাদান কারি প্রতিষ্ঠান মধ্যে সেরা। ইয়াহু সব থেকে কম খরচে প্রিমিয়াম কুয়ালিটি সেবা প্রদান করে থাকে।
  • iCloud Mailঃ আইক্লাউড হল অ্যাপল কোম্পানি ইমেইল সার্ভিসিং সেবা যেটির ফ্রি এবং প্রিমিয়াম দুটি সার্ভিস ই প্রদান করে। যেটি সবথেকে নিরাপদ ইমেইল সার্ভিস একাউন্ট বলে বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয়।

ইমেইল মার্কেটিং কী বা কাকে বলে ? [ Email Marketing Bangla ]

E-mail অর্থ Electronic mail আর Marketing অর্থ প্রচার-প্রসারনা।

ইমেইল মার্কেটিং (Email Marketing) হলো ইমেইলের মাধ্যমে প্রচার-প্রসারনা চালানো।

এজন্যই বলা যায় ইমেইল মার্কেটিং হলো এমন একটি অনলাইন মার্কেটিং চ্যানেল যার মাধ্যমে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নতুন প্রডাক্ট, ডিসকাউন্ট এবং কোন গুরুত্বপূর্ণ নোটিশ কাস্টমারদের ইমেইল লিস্টে সেন্ড করা হয়, যার ফলে ব্র্যান্ড অ্যাওয়ারনেস বৃদ্ধি, কাস্টমার রিলেশনশিপ ইম্প্রুভ হয় এবং নতুন সেলস জেনারেট করতেও সাহায্য করে।

ইমেইল মার্কেটিং কাকে বলে? [ Definition of Email Marketing ]

ইমেইল মার্কেটিং হলো ডাইরেক্ট অনলাইন মার্কেটিং যার মধ্যমে ব্যবসা প্রতিস্টানের প্রডাক্ট ও সার্ভিস সম্পর্কে কাস্টোমারকে সরাসরি ইমেইল করা হয়।

ইমেইল মার্কেটিং ইতিহাস | Email Marketing History Bangla

১৯৭১ সাল

Tomilnson Ray ছিলেন প্রথম ব্যাক্তি যে সর্বপ্রথম ইমেইল সেন্ড করেন। সে সময় ইমেইল এর নাম ছিল ইলেকট্রনিক মেইল মেসেজ (Electronic Mail Message)।

১৯৭২ সাল

Larry Roberts ইমেইল ম্যানেজমেন্ট ডাটাবেজ তৈরি করে ইমেইলের মধ্য ব্যাপক পরিবরর্তন নিয়ে আসে। যার মাধ্যমে ইমেইল সেন্ড, রিসিভ এবং ফরওয়ার্ড করা যেত।

১৯৭৮ সাল

Gary Thuerk (marketing manager at Digital Equipment Corporation) সে সর্বপ্রথম ইমেইল কে বাণিজ্যিক ভাবে ব্যবহার করে, ইমেইল ক্যাম্পেইন করে প্রায় ৪০০ মানুষের কাছে DEC machines এর প্রচারনা চালিয়ে প্রায় ১৩ মিলিয়ন ডলার সেলস জেনেরেট করে।

 ১৯৮২ সাল

ইলেকট্রনিক মেইল মেসেজ (Electronic Mail Message) এই নামটি সংক্ষেপ করে ইমেইল (email) রাখা হয়।

১৯৮৮ সাল

সর্বপ্রথম স্প্যাম মেইল ( SPAM email) অপশন নিয়ে ভাবা হয়। যে সকল ব্যাবহারকারি তৃতীয় পক্ষের ইমেইল দেখতে চাইনা তাদের জন্য এটা অনেক জনপ্রিয় হয়ে উঠে।

১৯৯৬ সাল

কিছু ইমেইল সার্ভিস চালু হয় যেমন ১৯৯৮ সালে মাইক্রোসফট ইন্টারনেট মেইল (Internet Mail) চালু করে যা পরবরর্তিতে Outlook নামে পরিচিত হয়। এ সময় Hotmail ফ্রী ইমেইল সার্ভিস শুরু করে ব্যবহারকারিকে সরাসরি একাউন্ট ক্রিয়েট করার সুযোগও দেওয়া হয়।

২০০৩ সাল

পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে CAN-SPAM Act চালু করা হয় যার ফলে ব্যবহারকারিরা Unsubscribe link, Block spammy sender, সেন্ডার ডিটেইলস এর মত সুবিধা পেতে থাকে।

২০০৯ সাল

রেসপন্সিভ ইমেইল ব্যবস্থা চালু করা হয় যার ফলে যেকোনো ডিভাইসে ইমেইল পারফেক্ট ভাবে দেখা যায়।

নোটঃ ইমেইল মার্কেটিং এর ইতিহাস আরো ভালোভাবে বুঝতে এই ইনফোগ্রাফিক্স টি পরুন।

কেন ইমেইল মার্কেটিং কেনো জনপ্রিয় ? | Why Email is Popular ?

আমরা কিছু পরিসনংখ্যান দেখে নেয় তাহলেই বুজঝতে পারবো কেনো এটা জনপ্রিয় হচ্ছেঃ-

SMART INSHIGT এর মতেঃ “বর্তমানে ইমেইল মার্কেটিনং কম খরচে সবথেকে ইফেক্টিভ মার্কেটিং চ্যানেল যা অন্য সব Social মিডিয়া, SEO মার্কেটিং এবং অনান্য ডিজিটাল মার্কেটিং চ্যানেলকেও পেছনে ফেলে দেয়”।

STATISTA এর মতেঃ “বিশ্বব্যপি ২০২১ সালেই প্রায় ৩১৯.৬ বিলিয়ন ইমেইল প্রতিদিন সেন্ড ও রিসিভ করা হয়েছে যা ২০২৫ সাল নাগাদ প্রায় ৩৭৬.৪ বিলিয়ন প্ররযন্ত ব্ৃদ্ধি পাবে”।

STATISTA এর মতেঃ ২০১৮ সালের এক প্রতিবেদনে বলা হয় বিশ্বব্যপি ৪৩% মেইল অপেন করা হয় মোবাইলের মাধ্যমে,যা দিন দিন আরো বৃদ্ধি পাচ্ছে।

FINANCEONLINE এর মতেঃ বিশ্বব্যপি ২০২০ সাল পর্যন্ত প্রায় ৪ বিলিয়ন ইমেইল ব্যবহারকারি আছে যা ২০২৪ সাল নাগাদ আরো ৩% ব্রিদ্ধি হয়ে ৪.৫ বিলিয়ন ব্যবহারকারি হতে পারে।

CAMPAIGNMONITOR এর মতেঃ ফেসবুক অথবা টুইটার মার্কেটিং থেকে ইমেইল মার্কেটিং ৪০ গুণ বেশি কার্যকর এবং অর্গানিক।

সম্প্রতি আরও একটি  গবেষণায় বলা হয় যদি ইমেইল মার্কেটিংয়ে আপনি 1$ ইনভেস্ট করেন তাহলে 42$ পর্যন্ত রির্টান পেতে পারেন,যা কিনা সবথেকে বেশি ROI মার্কেটিং স্ট্রাটেজি।

ইমেইল মার্কেটিং এর গুরুত্ব | Importance of Email Marketing

  • যেকোনো অনলাইন মার্কেটিং মেথড থেকে ইমেইল মার্কেটিং অনেক সহজ ও অরগানিক।
  • ইমেইল মার্কেটিং এর মাধ্যমে সুনির্দ্রিস্ট কাস্টমারকে টার্গেট করে মার্কেটিং করা যায় এইজন্য ইমেইল কে বেস্ট অর্গানিক মার্কেটিং মাধ্যম বলা হয়।
  • এখানে টোটাল মার্কেটিং এর ৯০% পর্যন্ত রির্টান পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে যা অন্য কোনো অনালাইন মার্কেটিং মাধ্যমে সম্ভব নয়।
  • ইমেল মার্কেট হলো Cost Effective Marketplace যেখানে ১টা ইনভেস্ট করলে ৪২টাকা পর্যন্ত লাভ করা যায়।
  • মাত্র কয়েক ক্লিকেই আপনার বিজিনেস প্রোডাক্ট, ও সার্ভিস সম্পর্কে ঘরে বসেই কাস্টোমারকে জানিয়ে দেওয়া যায়।

ইমেইল মার্কেটিং এর প্রকারভেদ? | Types of Email Marketing

মার্কেটিং এর কাজের উপর নির্ভর করে ইমেইলের টেম্পলেট স্ট্রাকচার, ডিজাইন ও মেসেজ ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে।  ইমেইল মার্কেটিং বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করা হয় এই কাজের উপর ভিত্তি করে ইমেইল মার্কেটিং কে বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা যায়।যেমনঃ-

  • Business Email (বিজিনেস ইমেইল)
  • Marketing Email (মার্কেটিং ইমেইল)
  • Informational Email (ইনফরমেশনাল ইমেইল)
  • Personal Email (পারসোনাল ইমেইল)
  • Survey Email (সার্ভে ইমেইল)

Chapter-02 কিভাবে ইমেইল মার্কেটিং করতে হয়

ইমেইল মার্কেটিং কিভাবে করতে হয় ? | How to start email Marketing in Bangla ?

  • স্টেপ ১ঃ ইমেইল ক্যাম্পেইন গোল এবং প্লান সেটাআপ করুন
  • স্টেপ ২ঃ মার্কেটিং নিস সিলেক্ট করুন 
  • স্টেপ ৩ঃ টার্গেটেড কাস্টমারদের ইমেইল লিস্ট করুন
  • স্টেপ ৪ঃ ইমেইল লিখুন ও টেম্পেলেট ডিজাইন ক্রুন
  • স্টেপ ৫ঃ ইমেইল মার্কেটিং টুলস সিলেক্ট করুন
  • স্টেপ ৬ঃ সঠিক টাইম সিলেক্ট করে সেন্ড করুন
  • স্টেপ ৭ঃ ইমেইল ক্যাম্পেইন মনিটরিং করুন

স্টেপ ১ঃ ইমেইল ক্যাম্পেইন গোল এবং প্লান সেটাআপ করুন

ইমেইল মার্কেটিং করার আগে অবশ্যই সম্পূর্ন্য প্লান সুনির্দিষ্ট করে দিতে হবে যেমন এই ইমেইল ক্যাম্পেইন থেকে আপনি কতো লিড বা সেলস আশা করছেন, কতদিন ধরে এই  ইমেইল ক্যাম্পেইনটি চালাতে চান, সেই সাথে কোন ধরনের কাস্টমারের কাছে ক্যাম্পেইনটি সবথেকে বেশি গ্রহণযোগ্যতা পাবে সেটিও আপনাকে নির্ধারণ করতে হবে।

প্রথম স্টেপে যেসব বিষয় আপনি বিবেচনা করতে পারেন- টার্গেটেড সেলস, ক্যাম্পেইন টাইম, টার্গেটেড বাজেট এবং মার্কেটিং মাধ্যম।

স্টেপ ২ঃ মার্কেটিং নিস সিলেক্ট করুন

কি ধরনের মার্কেটিং করতে যাচ্ছেন সেটি সিলেক্ট করে নিতে হবে কারণ মার্কেটিং লিস্ট এর উপরে ইমেইল লেখা, টেমপ্লেট ডিজাইন, ক্যাম্পেইন টার্গেট নির্ধারণ করা সহ অনেক ধরনের কাজ নির্ভর করছে এজন্য আগে সিলেক্ট করেনিন আপনি নতুন প্রডাক্ট প্রমোশন করতে চান, ডিসকাউন্ট  অফার দিতে চান, নাকি গুরুত্বপূর্ণ কোন মেসেজ দিতে চান।

স্টেপ ৩ঃ টার্গেটেড কাস্টমারদের ইমেইল লিস্ট করুন

ইমেইল মার্কেটিং করার জন্য ইমেইল লিস্ট খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। যার কাছে যত বেশি এবং সঠিক ইমেইল লিস্ট থাকবে সেই ইমেইল ক্যাম্পেইন ততো বেশি সফল হবার সম্ভাবনা থাকবে। বিভিন্ন মার্কেট নিস সিলেক্ট করে টার্গেটেড কাস্টমারদের কাছে আপনার ই-মেইল ক্যাম্পেইনের মেসেজ সেন্ড করতে হবে।

স্টেপ ৪ঃ ইমেইল লিখুন ও টেম্পেলেট ডিজাইন করুন

ইমেইল ক্যাম্পেইনের ধরনের উপর ডিপেন্ড করে মেইল লেখার ধরন এবং টেমপ্লেট ডিজাইন।

ডিজাইন ভিন্ন হয়ে থাকে কারণ আপনি যদি প্রমোশনাল ক্যাম্পেইনে করেন তখন এক ধরনের ইমেইল লিখতে হবে এবং টেম্পলেট ডিজাইন করতে হবে আবার আপনি যদি ইনভাইটেশন ইমেইল ক্যাম্পেইন করেন তাহলে আবার আরেক ধরনের টেম্পেলেট ডিজাইন করতে হবে।

মার্কেটপ্লেসে অনেক ফ্রি এবং প্রিমিয়াম ইমেইল টেমপ্লেট পাওয়া যায় সেখান থেকে একটি টেমপ্লেট সিলেক্ট করে প্রোডাক্ট ও মেসেজ সাজিয়ে নিবেন।

স্টেপ ৫ঃ ইমেইল মার্কেটিং টুলস সিলেক্ট করুন

 ইমেইল মার্কেটিং টুলস ছাড়া ইমেইল করা অসম্ভব এজন্য সর্বপ্রথম মার্কেটপ্লেস থেকে যে কোন একটি ফ্রি অথবা প্রিমিয়াম ইমেইল মার্কেটিং টুল সিলেক্ট করে নিতে হবে এরপর আপনার টার্গেটেড ইমেইল লিস্ট, ডিজাইন টেম্পেলেট, প্রমোশনাল মেসেজ টুলসে ইনপুট করতে হবে। সঠিক ইমেইল মার্কেটিং টুলসের উপর মার্কেটিং এর কার্যকরিতা অনেকটাই নির্ভর করে কারণ মারকেটিং টুলস এর কারণে অনেক সময়ই মেসেজগুলো কাস্টমারের SPAM Mail Box এ চলে আসে এইজন্য গুগলের কাছে ইমেইল গুলো যাতে SCAM Mail মনে হয় সেজন্য ভালো মারকেটিং টুলস ব্যবহার করতে হবে যাতে মেসেজগুলি ডাইরেক্ট ব্যবহারকারী ইনবক্সে যায়।

স্টেপ ৬ঃ সঠিক টাইম সিলেক্ট করে সেন্ড করুন

 ইমেইল সেন্ডিং টাইম ইমেইল ক্যাম্পেইনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ সঠিক সময়ে আপনার ইমেইলটি সেন্ড না করলে ক্যাম্পেইন এর কার্যকারিতা কমে যাবে।

যদি আপনার ইমেইলটি মধ্যরাতে সেন্ড করেন তাহলে বেশিরভাগ কাস্টমার আপনার ইমেইল ওপেন করবে না আবার যারা  ওপেন করবে তারা ম্যাসেজটি ভাল ভাবে নাও করতে পারে আবার সকাল আসতে আসতে আপনার ইমেইল দিয়ে অনেক গুলোই মেয়েদের পিছনে চলে যেতে পারে।

এজন্য ই-মেইল সেন্ড করার পারফেক্ট টাইম খুঁজে বের করতে হবে এটি হতে পারে অবসর সময় অথবা ছুটির দিন যে সময় মানুষ সাধারণত ইমেইল চেক করে। 

স্টেপ ৭ঃ ইমেইল ক্যাম্পেইন মনিটরিং করুন

ইমেইল ক্যাম্পেইন মনিটরিং করার জন্য বিভিন্ন রকম ফ্রী ও পেইড ইমেইল মার্কেটিং টুলস পাওয়া যায়, যার মাধ্যমে ক্যাম্পেইন থেকে আসা সর্বমোট ট্রাফিক, ক্লিক, ইম্প্রেশন, বাউন্স রেট, টোটাল সেলিং এবং অডিয়েন্স অভারভিউ জানা যায়।

এছাড়াও যারা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ক্যাম্পেইন চালাই এরা গুগল এনালাইটিক্স, গুগল সার্চ কনসোল  এবং অন্য SEO টুলস ব্যবহার করে ক্যাম্পেইনের আপডেটেড ইনফরমেশন জানতে পারে।

বেস্ট ইমেইল মার্কেটিং মেথড | Email Marketing best Method Bangla

  • ফ্রি ইমেইল মার্কেটিং কৌশল
  • পেইড ইমেইল মার্কেটিং কৌশল

ফ্রী ইমেইল মার্কেটিং কৌশল | Free Email Marketing Method

ফ্রী ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে আমাদের কয়েকটি স্টেপ জানতে হবে তা না হলে ফ্রি ইমেইল মার্কেটিং আমরা সফল ভাবে মনিটরিং করতে পারবোনা। যেহেতু এটি একটি ফ্রী মার্কেটিং কৌশল সেহেতু অবশ্যই আপনাকে একটু বেশি পরিশ্রম করে সকল হিসেব নিকেশ ভালোভাবে জেনে নিতে হবে যাতে কাজটি পারফেক্টলি শেষ করতে পারেন।

  • ফ্রী ইমেইল মার্কেটিং লিস্ট কালেক্ট করা জানতে হবে
  • ফ্রী ইমেইল টেম্পেলেটস ডাউনলোড করে নিন এবং ইমেইল লিখে ফেলুন
  • ইমেইল মার্কেটিং এর জন্য বেস্ট ফ্রী প্ল্যাটফর্ম খুঁজে বের করুন
  • ফ্রী টুলস দিয়ে প্রতিটি ক্যাম্পেইন ভালোভাবে মনিটরিং করুন
  • ফ্রীতে ইমেইল মার্কেটিং লিস্ট কালেক্ট করা জানতে হবে

ইমেইল মার্কেটিং লিস্ট কালেক্ট করার জন্য অনেক ধরনের  স্ট্রাটেজি রয়েছে যে উপায় গুলো ফলো করলে মার্কেটপ্লেস থেকে খুব সহজেই ফ্রি টার্গেটেড কাস্টমারদের ইমেইল লিস্ট কালেকশন করতে পারবেন।

এ পর্যায়ে আমরা লিস্ট কালেক্ট করার কিছু উপায় জেনে নিন

  1. যদি আপনার সফটওয়্যার প্রডাক্ট থাকে তাহলে কাস্টমারদের কে ট্রাইল এর জন্য অফার করতে  পারেন। যাতে কাস্টমাররা রেজিস্ট্রেশন করে, সাবস্ক্রিপশন করে- তখন আপনি তাদের ইমেইল গুলো কালেক্ট করে দিতে পারেন যেটা পরবর্তীতে মার্কেটিং কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।
  2. আপনার যদি ফিটনেস বিজিনেস বা এক্সেরসাইজ় ব্যবসা থাকে তাহলে কাস্টমারদের কে ফ্রি ডায়েট প্লান অথবা ফিটনেস প্লান ইমেইল করার অফার দিতে পারেন।
  3. আপনার যদি খুচরা দোকানের ব্যবসা থাকে তাহলে ডিসকাউন্ট অফার দিতে পারেন সেই সকল কাস্টমারদের কে যারা আপনার ওয়েবসাইটটি বা এই লিংকটি সাবস্ক্রাইব করবে, তাহলে এর মাধ্যমে আপনি তাদের ইমেইল কালেক্ট করে পরবর্তীতে মার্কেটিং এর কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।
  4. আপনার যদি কোন ওয়েবসাইট থাকে তাহলে Live Chat or Chatbot apps  ব্যবহার করতে পারবেন যেখানে আপনার ভিজিটররা বাধ্যতামূলক ইমেইল এবং ইউজার নেম দিয়ে আপনার সঙ্গে চ্যাটিং করতে পারবে। 
  5. ওয়েবসাইটের একটি জনপ্রিয় feature হলো POP-Up এবং Sign-Up অপশনের মাধ্যমে ভিজিটরদের ইমেইল কালেক্ট করা, যা পরবর্তীতে নিউজলেটার নোটিফিকেশন  সেন্ড করতে ব্যবহার করা যাবে।
  • ফ্রী ইমেইল টেম্পেলেটস ডাউনলোড করে নিন এবং ইমেইল লিখে ফেলুন

ইমেইল মার্কেটিং এর জন্য টেমপ্লেট খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ, মার্কেটপ্লেসে এমন অনেক ওয়েবসাইট পাওয়া যায় যেখানে হূদযন্ত্রের ডাউনলোড করে ইমেইল মার্কেটিং করতে পারবেন অথবা  পার্সোনাল কাজে ব্যবহার করতে পারবেন।

ফ্রী  ইমেইল টেমপ্লেট ডাউনলোড করার জনপ্রিয় কিছু ওয়েব সাইট রয়েছে যেখান থেকে আপনার প্রয়োজন অনুসারে যেকোনো টেম্পেলেট আপনি ব্যাবহার করতে পারবেন-

  1. UNLAYER – এখানে প্রায় ৬০০+  ফ্রী ইমেইল টেমপ্লেট পাওয়া যাবে, সেটা No Code HTML Email template হিসেবেও অনেক পরিচিতি।
  2. BEEFREEএখানেও প্রায় ১২৪০+ HTML ও Professional ব্যবহারের জন্য ফ্রী টেমপ্লেট পাওয়া যায়। অনেক অপশন থাকার কারণে নিজের পছন্দ মত যে কোন টেম্পেলেট এখান থেকে সিলেক্ট করে নিতে পারেন।
  3. MAILBAKERY – এখানে HTML Template এর প্রিমিয়াম ডিজাইন পাওয়া যায়,এ ধরনের টেমপ্লেট যে কোন ডিভাইসে খুব ভালোভাবে ফিট হয়।
  4. 99DESIGN এই ধরনের টেম্পেলেট সাধারণত প্রফেশনাল কাজের জন্য বেশি ব্যবহার করা হয় অফিশিয়াল কোন গুরুত্বপূর্ণ নোটিশ অথবা স্পেশিয়াল কোন মেসেজ সেন্ড করার জন্য এই ধরনের ইমেইল টেম্পেলেট অনেক জনপ্রিয়।
  5. LITMUS – রেস্পন্সিভ ইমেইল মানেই লিট্মাস ওয়েবসাইটের নাম অনেক সুপরিচিত-আপনি চাইলেই যেকোনো রেসপন্সসিভ ফ্রী ইমেইল টেমপ্লেট এখান থেকে ডাউনলোড করতে পারেন।
  • ইমেইল মার্কেটিং এর জন্য বেস্ট ফ্রী প্ল্যাটফর্ম খুঁজে বের করুন

সিমি মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে অবশ্যই বেস্ট ফ্রী টুলস খুজে বের করতে হবে যার মাধ্যমে প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণে ইমেইল মার্কেটিং করতে পারা যাবে।

ইমেইল মার্কেটিং এর জন্য মার্কেটপ্লেসের বেস্ট ফ্রী টুলস হলোঃ

  • HUBSPOTহাবস্পট হলো বেস্ট ফ্রী ইমেইল মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম যা ছোট বড় সব ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জন্য ইমেইল মার্কেটিং সার্ভিস প্রদান করে। আপনি যদি ফ্রী প্লান ব্যবহার করেন তাহলে প্রতি মাসে ২০০০ ইমেইল সেন্ড করতে পারেন।
  • SENDINBLUE সবথেকে জনপ্রিয় একটি ইমেইল মার্কেটিং প্ল্যাটফর্ম, প্রতিদিন ৩০০  ইমেইল ফ্রী সেন্ড করা যাবে, এছাড়াও রয়েছে ফ্রী চ্যাটিং ফিচার এবং এসএমএস মার্কেটিং ফিচার, এছাড়াও এখান থেকে ফ্রী ইমেইল টেম্পেলেটও ব্যবহার করা যাবে। 
  • MAILERLITE1000 সাবস্ক্রাইবার পর্যন্ত আপনি এই টুলস টি ফ্র ব্যবহার করতে পারেন এরপরে ব্যবহার করতে হলে প্রতি মাসে 10 ডলার করে দিতে হবে।
  • MOOSENDআপনার যদি ই-কমার্স ওয়েবসাইট থাকে তাহলে এই টুলস টি হতে পারে আপনার জন্য বেস্ট ফ্রী একটি টুলস,যা দিয়ে মান্থলি আনলিমিটেড ইমেইল সেন্ড করেত পারবেন। শুধু রেজিট্রেশন করেই যেকোনো একটি ফ্রী ভার্সন ব্যবহার করা যাবে কোনো ক্রেডিট কার্ডেরও প্রয়োজন হবে না।

 পেইড ইমেইল মার্কেটিং কৌশল | Paid Email Marketing Method

মার্কেটপ্লেসে অনেক জনপ্রিয় কিছু ইমেইল মার্কেটিং অটমেশন টুলস পাওয়া যায় যেগুলো বিভিন্ন রকম পেইড ফিচার প্রদান করে। যে টুলস গুলো ক্যাম্পেইনের কার্যকরিতা আরো বৃদ্ধি করবে,যদি অতিরিক্ত ঝামেলা ছাড়াই ম্যাক্সিমাম সংখ্যক ইমেইল কালেক্ট করতে চান এবং অটোমেটিক্যালি সেটি সেন্ড করতে চান, সেই সাথে ইমেইল মার্কেটিং ক্যাম্পেইন মনিটরিং করা এবং বিভিন্ন রিপোর্ট এনালাইসিস করার জন্য এই ধরনের পেইড মার্কেটিং প্রোয়োজন হবে।

পেইড ইমেইল মার্কেটিং করতে হলে আপনাকে কয়েকটি স্টেপ ফলো করতে হবে যেমন

  • ইমেইল লিস্ট কিনতে হবে 
  • পেইড ইমেইল মার্কেটিং টুলস কিনতে হবে
  • প্রিমিয়াম টেম্পেলেট বাছাই করতে হবে
  • ক্যাম্পেইন মনিটরিং করতে হবে

মার্কেটপ্লেস থেকে এরকম অনেক প্রিমিয়াম টুলস পাওয়া যায় যার একটি টুলসের মাধ্যমেই সবগুলো কাজ করা সম্ভব প্রতিবার ভিন্ন ভিন্ন টুলস কেনা লাগবে না-যেমনঃ-

CAMPAIGNER প্রতি মাসে ৫৯$ এবং ৫০০০ কন্টাক্ট পর্যন্ত ব্যবহার করা যাবে, সাধারণত টিম নিয়ে কাজ করার সময় এই ধরনের মার্কেটিং টুলস অনেক বেশী কার্যকর এবং সবাইকে নিয়ে মনিটরিং করা সহজ।

SMTPপ্রতি মাসে  25$ এ সর্বোচ্চ ৫০০০০ ইমেইল নিয়ে কাজ করা যাবে- কোয়ালিটি ইমেইল কালেক্ট করার জন্য এই টুলস টি অনেক বেশি কার্যকরী সেই সাথে ইমেইল মার্কেটিং ক্যাম্পেইনে পরিচালনা করা যাবে।

GETRESPONSEপ্রতি মাসে ১৫$ খরচ হবে। ইমেল কালেক্ট করা থেকে শুরু করে, ক্যাম্পেইন করা মনিটরিং করা এবং অটোমেটিক ভাবে ইমেইল সেন্ড করা এই সব ধরনের কাজই এই টুলসের মাধ্যমে করা যায়, এচছাড়াও একখানে কিছু প্রিমিয়াম টেম্পেলেটও খুজে পাবেন যা আপনার জন্য 

Leave a Reply